নওগাঁ জেলা প্রতিনিধিঃ

নওগাঁর বদলগাছীতে শিক্ষককের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।

জমানায় যে গত শনিবার ৮ জুলাই বিকাল ৫ ঘটিকায় দিকে নওগাঁর বালুভরা ইউনিয়নের দোনইল পশ্চিম পাড়ার মোঃ ফারুক হোসেনের মেয়ে ফারিয়া (১২) আব্দুল্লাহ রাফি (১০)
রাতুল (৮) পার্শ্ববর্তী মাঠে ঘুড়ি উড়ানোর জন্য যায়।এসময় একই গ্রামের আনছার আলীর ছেলে মোঃ জিয়াউর রহমান (মাদ্রাসা শিক্ষক) তাঁর বীজতলা নষ্ট করার অভিযোগে উক্ত ছেলে মেয়েদের মারধর করে।

এলাকাবাসি ও ফারিয়ার বাবা বলেন, দুই শিশুকে মিথ্যা অভিযোগে মারধর করার পর আমার মেয়েকে ঘটনা স্থলে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে রেখে শিশু দুটিকে তার বাড়িতে ধরে নিয়ে যায় এবং ঘরে বন্ধি করে রাখে। খবর পেয়ে আমরা মেয়েকে উদ্ধার করে বদলগাছী হাসপাতালে নিয়ে যাই এবং প্রতিবেশী অনেককে নিয়ে শিশু দুটিকেও উদ্ধার করি।

অভিযুক্ত জিয়াউর রহমানের সাথে ফোনে যোগাযোগ করলে তাঁর স্ত্রী বলেন, আমরা এখন নওগাঁ সদর হাসপাতালে। তিনি আরো বলেন,প্রতিবেশী বেশ কিছু সন্ত্রাসী আমার স্বামীকে অতর্কিত হামলা ও মোটরসাইকেল ছিনতাই করে নিয়ে যায় এবং গুরতর ভাবে আহত করে এমতো অবস্থায় আমার স্বামী কে হাসপাতালে নিয়ে আসি।

সরজমিন গিয়ে দেখা যায় তুচ্ছ এক ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই ধরনের মারপিটের ঘটনা ঘটেছে। ঐ এলাকায় এখন টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহূর্তে ঘটে যেতে পারে বড় কোন দুর্ঘটনা।

এবিষয়ে বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ আতিয়ার রহমান বলেন,শিশুকে মারধরের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে।এক জন আসামীকে আটক করা হয়েছে।

আপনি যে খবরগুলো মিস করেছেন