রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ
রাজবাড়ী শহীদ খুশি রেলওয়ে মাঠে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদী থেকে ফুলের ডালা নিয়ে যাচ্ছিলো ফুলের দোকানীর লোকজন। এই দৃশ্য ভিডিও করায় সাংবাদিকের ওপর হামলা করা হয়েছে। আজ বেলা পৌনে ১২টার দিকে এই হামলার ঘটনাটি ঘটে।
আহত সাংবাদিকের নাম আবদুল হালিম শেখ। তিনি দৈনিক দেশ রুপান্তর ও ডেইলি বাংলাদেশ পত্রিকার রাজবাড়ী প্রতিনিধি।
প্রত্যক্ষদর্শী ও সাংবাদিক আবদুল হালিম বাবু বলেন, তিনি দুপুর সাড়ে ১১ টার দিকে নিউজ সংক্রান্ত ছবির জন্য রাজবাড়ী শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যান। এসময় শহীদ মিনারের বেদী/পাদদেশ থেকে ফুলের ডালা নিয়ে যাচ্ছিলো কয়েকজন যুবক। তিনি বিষয়টি ভিডিও ধারণ করেন। ভিডিও করা দেখে কয়েকজন এগিয়ে আসেন। তারা ভিডিও করার কারণ জানতে চান। সাংবাদিক পরিচয় দেওয়ার পর ভিডিও মুছে ফেলতে বলেন। তিনি ভিডিও মুছতে অস্বীকৃতি জানান। এসময় তাকে টেনে হিচড়ে শহীদ মিনারের পশ্চিম পাশে নিয়ে যায়। তার ওপর কয়েকজন অতর্কিত ভাবে হামলা চালায়। হামলাকারী তাকে কিলঘুষি ও লাথি মারতে থাকে। একপর্যায়ে তার চিৎকারে পুলিশ সদস্যরা সেখানে এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা দৌড়ে পালিয়ে যান। পরে সহকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে তাকে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়েছে।
  হামলাকারীরা ১০-১২ জন ছিল। এবিষয়ে থানায় লিখিত ভাবে অভিযোগ দায়ের করা হবে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন, রাজবাড়ী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( সদর সার্কেল ) ইফতেখারুজ্জামান।
সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক নুরুল ইসলাম আজম বলেন, তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়েছে। চোখের পাশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। চোখের ডাক্তারের পরামর্শ নিতে বলা হয়েছে।
পুলিশ সুপার জি এম আবুল কালাম আজাদ বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। ভূক্তভোগি থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
 জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন,   শহীদ মিনার থেকে আমরা ফুল নেওয়ার জন্য কাউকে কোন অনুমতি দেই নাই। শহীদ মিনারে ২১ শে ফেব্রুয়ারি সারাদিন ফুলগুলো সাজিয়ে রাখা হয়। এগুলো শুকিয়ে গেলে সরিয়ে ফেলা হয়। খোঁজখবর নিয়ে অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনি যে খবরগুলো মিস করেছেন