নুর হোসেন- চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে সংগঠিত একটি হত্যা মামলায় ২০ বছর পালিয়ে থাকার পর সাজাপ্রাপ্ত এক আসামীকে পর গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

দিদারুল আলম ওরফে দিদার (৪৫) নামে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রাপ্ত এই ফেরারী আসামীকে মঙ্গলবার রাত পৌনে ১০টার দিকে চট্টগ্রাম মহানগরীর কোতোয়ালি থানার ফিরিঙ্গি বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে র‌্যাব জানায়।

আজ বুধবার (১৭ মে) নগরীর চান্দগাঁও র‌্যাব-৭ এর মিডিয়া সেন্টারে এক ব্রিফিংয়ে কোম্পানি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান জানান, গ্রেপ্তার হওয়া দিদারুল আলম হাটহাজারী থানার ফটিকালতি গ্রামের মৃত সৈয়দ আহাম্মদের ছেলে।দিদার ২০০৩ সালে হাটহাজারীতে ডাকাতি করতে গিয়ে জাহাঙ্গীর আলম নামের এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করেন। ওই ঘটনায় গ্রেফতারের পর জামিন নিয়ে প্রায় ২০ বছর পলাতক ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব জানায়, ২০০৩ সালের ২৫ নভেম্বর চট্টগ্রামের হাটহাজারী-মুরাদপুরগামী সড়কে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে টাকা পয়সা লুটে নেন একদল ডাকাত। এসময় ভিকটিম জাহাঙ্গীর আলম রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় ডাকাত দলের সদস্যরা তাকে আটক করে টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেন। সেসময় জাহাঙ্গীর ডাকাত দলের এক সদস্যকে চিনে ফেলেন এবং চিৎকার করেন। একপর্যায়ে ডাকাত দলের সদস্যরা বিষয়টি বুঝতে পেরে জাহাঙ্গীরকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান জাহাঙ্গীর।

এ ঘটনায় আরেক ভিকটিম স্থানীয় ফজল আহাম্মদ ড্রাইভার বাদী হয়ে ওই বছরের ২৯ নভেম্বর হাটহাজারী থানায় মামলা করেন। মামলায় দিদার গ্রেফতার হয়ে কিছুদিন হাজতবাস করেন। পরে জামিনে বেরিয়ে পলাতক হন। ওই মামলায় গত বছরের ৩০ মে আদালত আসামিদের অনুপস্থিতে রায় ঘোষণা করেন। রায়ে দিদারুল আলমকে ৩০২ ধারায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত।

এরপর র‌্যাব-৭ গোয়েন্দা নজরদারি ও ছায়াতদন্তের মাধ্যমে আসামি দিদারকে শনাক্ত ও তার অবস্থান চিহ্নিত করে। মঙ্গলবার নগরীর ফিরিঙ্গী বাজার এলাকা থেকে দিদারুল আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আপনি যে খবরগুলো মিস করেছেন