মোঃ মুক্তাদির হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ

গাজীপুরের কালীগঞ্জে সিমেন্ট বোঝাই বেপরোয়া গতির একটি লড়ি চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী এক নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ মে) দুপুরে কালীগঞ্জ বাইপাস সড়কের মোড় (ভাদার্ত্তী) এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিহতের নাম আব্দুল হামিদ ভূইয়া (৩৪) উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের পানজোড়া এলাকার আবুল হাশেম ভূইয়ার ছেলে। তিনি নির্মাণ শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে টঙ্গী-ঘোড়াশাল সড়কের কালীগঞ্জ বাইপাস মোড় (ভাদার্ত্তী) এলাকায় আড়িখোলাগামী সিমেন্ট বোঝাই বেপরোয়া গতির একটি লড়ি বিপরীত দিক থেকে আসা ঘোড়াশালগামী একটি মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী আব্দুল হামিদ ভূইয়ার মৃত্যু হয়। সে সময় মোটরসাইকেল এর চালক গলান গ্রামের কুতুব উদ্দিন মৃধার ছেলে জসিম মৃধা এবং অপর আরোহী পারাবর্তা গ্রামের আহাম্মদ মুন্সির ছেলে আরিফ মুন্সি আহত হয়েছে। পরে স্থাণীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার এবং দুর্ঘটনা কবলিত মোটরসাইকেল ও লড়ি জব্দ করেছে।
স্থাণীয়দের অভিযোগ, ট্রাফিক সার্জেন্টরা বিভিন্ন গাড়ির কাগজপত্র পরীক্ষা করার নামে উভয় পাশে অসংখ্য গাড়ি দাড় করিয়ে রাখায় এ মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় কবলিত হয়েছে। তারা আরও বলেন, দুর্ঘটনায় কবলিত মোটরসাইকেলে চালক ছাড়াও দুইজন আরোহী মোট তিনজন ছিলেন। চালকের মাথায় হেলমেট ছিল অন্যদের ছিল না। মোটরসাইকেলে তিনজন ও হেলমেট না থাকায় ট্রাফিক পুলিশ তাদের দাওয়া করে। এ সময় গতিরোধ করতে না পারায় দূর্ঘটনায় কবলিত হয়।
ঘটনাস্থল সংলগ্ন এলাকায় কর্তব্যরত গাজীপুর ট্রাফিক পুলিশের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) নাসির উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, আমরা যেখানে ডিউটি করতে ছিলাম তার দূরে দুর্ঘটনা হয়েছে। ট্রাফিক সার্জেন্টের দাওয়ায় বা রাস্তার উভয় পাশে গাড়ি দাড় করিয়ে রাখায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় কবলিত হয়েছে কিনা এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি উত্তর না দিয়ে পাশ কাটিয়ে যান।
কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রেজাউল করিম বলেন, দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মোটরসাইকেল ও লরি জব্দ করে লরি চালক শাওনকে (১৮) আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।

আপনি যে খবরগুলো মিস করেছেন