রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ
রাজবাড়ীতে প্রতিমণ ধানের দাম ১ হাজার ৫০০টাকা নির্ধারণ করাসহ নয় দফা দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করেছে কালুখালী উপজেলা কৃষক সমিতি। কৃষি বাঁচাও-কৃষক বাঁচাও-দেশ বাাঁচাও স্লোগান ধারণ করে বৃহস্পতিবার (২ মে) বেলা ১১ টার দিকে কালুখালী উপজেলা পরিষদের মূল ফটকের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন কালুখালী উপজেলা কৃষক সমিতির সম্পাদক ইলিয়াস খান। এতে বক্তব্য দেন জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি আব্দুস সামাদ মিয়া, জেলা কৃষক সমিতির সভাপতি আব্দুস সাত্তার মন্ডল, সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান, জেলা কমিটির সদস্য ক্বারী মো. শাহাবুদ্দিন, পাংশা উপজেলা কৃষক সমতির সম্পাদক মো. তোফাজ্জেল হোসেন প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, সরকার এক প্রতিমণ দানের দাম নির্ধারণ করেছে ১২৪০টাকা। কিন্তু প্রতিমণ ধান উৎপাদনের খরচ তার চেয়ে বেশি। বাজারে এখন ধানের দাম কমে গেছে। সরকারি গুদামে ধান বিক্রি করতে হলে কৃষককে নানা ধরণের হয়রানীর শিকার হতে হয়। এইসব বন্ধ করতে হবে। হাটে-বাজারে ফসল বিক্রি করতে গেলে ধলতা ও তোলার নামে প্রতিমণে দুই থেকে পাঁচ কেজি ফসল বেশি দিতে হয়। এইগুলো বন্ধ করতে হবে।
দাবিগুলো হলো, অবিলম্বে ইউনিয়ন পর্যায়ে সরকরি ক্রয়কেন্দ্র চালু করতে হবে, হাটবাজার থেকে ধলতা ও তোলা নেওয়া বন্ধ করতে হবে, খোদ কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ফসল ক্রয় করতে হবে, ফসলের লাভজনক দাম দিতে হবে, বোরো মৌসুমে ধান আমদানি স্থগিত রাখতে হবে, সার-বীজ-কীটনাশকসহ কৃষি উপকরণের দাম কমাতে হবে, সবজি সংরক্ষণের জন্য পর্যাপ্ত কোল্ড স্টোরেজ নির্মান করতে হবে, বিএডিসিকে সচল, পল্লী রেশন ও শস্যবীমা চালু করতে হবে, পল্লী বিদ্যুত ও ভূমি অফিসে অনিয়ম, হয়রানি ও দূর্নীতি বন্ধ করতে হবে।
মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

আপনি যে খবরগুলো মিস করেছেন