মোঃ সোহেল রানা ( বরগুনা )ঃ

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন (বিএনএম) নয়া রাজনৈতিক দল হিসাবে নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধন পাওয়ায় দেশের উপকূলীয় জনপদ বরগুনার বেতাগীতেও রাজনীতির মাঠে আলোচিত হয়ে উঠেছে। বিএনএম‘র কার্যক্রম ও নির্বাচন নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা।

দলের প্রতিষ্ঠাতা এখানকার মানুষ হওয়ায় এ নিয়ে কথা হয় উপজেলার বিভিন্ন পেশার মানুষের সাথে। নতুন এ দলের নিবন্ধনে তাঁরা খুশি ও সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। গত রোববার প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের সভাপতিত্বে নির্বাচন কমিশন ভবনে নিবন্ধনবিষয়ক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে এটি গঠনের পর থেকেই দেশের রাজনৈতিক মহলে নানা আলোচনা চলছিল।

মাঠ পর্যায়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইসির বিবেচনায় ‘নিবন্ধন পরীক্ষায়’ উত্তীর্ণ ২৭ দফা লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সামনে রেখে ২০২১ সালের ৭ জুলাই গঠিত বিএনএমের বরগুনার বেতাগী উপজেলার বেতাগী পৌরসভার বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় একটি ভাড়া করা ভবনে কার্যালয় রয়েছে। কয়েকমাস আগে সেখানে অফিসটি স্থাপন করা হয়। বিএনএমের নেতৃত্বে রয়েছেন এবং আহবায়কের দায়িত্ব পালন করছেন সাবেক সংসদ সদস্য প্রফেসর ড, আব্দুর রহমান খোকন। এ উপজেলায় তার বাড়ি। তিনি জানান, স্থানীয়ভাবে সেখানেই সংগঠনের কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

ড, আব্দুর রহমান খোকন যিনি ১৯৯৬ সালের ১৫ ফ্রেরুয়ারি ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বরগুনা-১ আসনে বিএনপি থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। সপ্তম সংসদ নির্বাচনেও একই আসন থেকে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট করেন তিনি।

দলের মধ্যে আভন্তরীণ কোন্দলে বিজীত হণ। ১৯৭৮ সালে ‘জাগো ছাত্রদল’ দিয়ে আব্দুর রহমানের রাজনীতিতে হাতেখড়ি। পরে তিনি বরগুনা জেলা ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাকালীন কমিটির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক হন। এরপর জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহসভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। একপর্যায়ে বৃহত্তর বরিশাল ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হন।

সর্বশেষ বরগুনা জেলা বিএনপির সহসভাপতি এবং বেতাগী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ছিলেন। সেই থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত তিনি বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। তারপর স্বেচ্ছায় রাজনীতি ছেড়ে দিয়ে পিএইচডি করতে ভারত যান। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে পিএইচডি সম্পন্ন করেন তিনি।

পরবর্তীতে এক পর্যায় তিনি আওয়ামী লীগের সাথেও যুক্তহণ। এছাড়া বেতাগী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষের দায়িত্ব ছেড়ে ঢাকায় গিয়ে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকতা শুরু করেন। বর্তমানেও রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা পেশায় সম্পৃক্ত রয়েছেন।
বিএনএমের আহ্বায়ক আবদুর রহমান খোকন জানান, শুধু নিজ এলাকায়ই নয়, ইসিতে দেওয়া তাঁর দলের জেলা, থানা ও উপজেলা কার্যালয়ের ঠিকানা শতভাগ সঠিক। তাদের নেতাকর্মীরা সেখানে নিয়মিত বসেন এবং রাজনৈতিক কার্যক্রম চালান। চূড়ান্ত নিবন্ধন পাওয়ার পরই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে তাঁর দল। এই দলের ব্যানারে শীর্ষ পর্যায়ের অনেকেই নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা কোনো দল ভাঙাগড়ার সঙ্গে জড়িত নই। ভালো মানুষকে রাজনীতিতে সম্পৃক্ত করে কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাই দলের উদ্দেশ্য।