আতিকুর, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) প্রতিনিধি :

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়ার অপরাধে দুইজনকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং জান্নাতুল ফেরদৌস নামের এক ভুয়া নারী শিক্ষার্থীকে ১ হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করেছেন ভ্রঅম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) দুপুরে এসএসসি পরীক্ষার ভেন্যুকেন্দ্র ঝিনাইগাতী সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আশরাফুল কবীর এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন- উপজেলার সারিকালিনগর গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে এনামুল হক (২৪), দিঘীরপাড় গ্রামের মো. ছামিউল হকের ছেলে মো. হানিফ (১৯) ও সারিকালিনগর গ্রামের জান্নাতুল ফেরদৌস (২১)।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সুত্রে জানা গেছে, ভুয়া পরীক্ষার্থী এনামুল হক তার বন্ধু এসএসসি পরীক্ষার্থী শ্রী রতন রবি দাস, মো. হানিফ তার বন্ধু পরীক্ষার্থী মো. বিল্লাল হোসেন ও জান্নাতুল ফেরদৌস তার মা নুরুন্নাহারের পরিবর্তে এসএসসি (ভোকেশনাল) শাখার রসায়ন-২ (১৯২৬) এর প্রক্সি পরীক্ষা দিতে এসেছিল। পরীক্ষার্থীরা উপজেলার আহাম্মদনগর উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি (ভোকেশনাল) শাখার শিক্ষার্থী ছিলেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আশরাফুল কবীর জানান, ‘পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে একজন পরীক্ষার্থীর আচরণে সন্দেহ হয়। পৃরে কেন্দ্র সচিব মো. আব্দুল হামিদের সহায়তায় তখন সব শিক্ষার্থীর কাগজপত্র যাচাই করে এনামুল হক, হানিফ ও জান্নাতুল ফেরদৌস পরীক্ষার্থী সেজে পরীক্ষার্থীদের পরিবর্তে প্রক্সি পরীক্ষা দিচ্ছিল। দোষ স্বীকার করায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এনামুল হক ও মো. হানিফকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড সহ ১০০ টাকা করে অর্থদন্ড এবং জান্নাতুল ফেরদৌসকে ১ হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়।

আপনি যে খবরগুলো মিস করেছেন