রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ
রাজবাড়ীতে বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমদু খৈয়ম সংবাদ সম্মেলন করেছেন। বিএনপি ও সহযোগী নেতাকর্মীদেও হামলা ও মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রতিবাদে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
সোমবার ২২শে মে ১২টায় শহরের সজ্জনকান্দায় নিজ বাসভবনে লিখিত বক্তব্য পরে শোনায় আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম।
তিনি বলেন, ১০ দফা দাবিতে শহরের আজাদী ময়দানে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে প্রাঙ্গনে পূর্বঘোষিত জনসমাবেশ ছিল। সমাবেশে যাওয়ার সময় প্রথমে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা করে। বাঁধা উপেক্ষা করে মিছিল নিয়ে দলীয় কার্যালয়ের দিকে যাচ্ছিলেন। কিন্তু পুলিশ অতর্কিত ভাবে মিছিলে লাঠিচার্জ করে। অমানবিক ভাবে নারী নেত্রীসহ নেতাকর্মীদের মারধর করা হয়। গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়া হয়। একপর্যায়ে তিনি বাসভবনে নেতাকর্মীদের নিয়ে চলে আসেন। তাঁর বাসভবনে সামনে এসে পুলিশ রাবার বুলেট ছোঁড়ে। এলাকায় একটি আতঙ্কজনক পরিবেশ সৃষ্টি করে। রাতে নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে অবিলম্বে তাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করেন তিনি।
তিনি বলেন, বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন রাজবাড়ীতে রাজনৈতিক সহাবস্থান ছিল। রাজনৈতিক সম্প্রীতি ছিল। কিন্তু বর্তমানে রাজবাড়ীর সকল রাজনৈতিক শিষ্ঠাচার লঙ্ঘন করা হয়েছে।
কিন্তু এভাবে বিএনপির নেতাকর্মীদের দমিয়ে রাখা যাবে না। আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবে আমাদের দাবি আদায়ে কর্মসূচি চালিয়ে যাবো। পুলিশ বাহিনীকে সরকারের গদি রক্ষার হাতিয়ার না হয়ে জনগনের অধিকার রক্ষা ও সেবক হিসেবে জনতার পাশে থাকার উদাত্ত আহবান জানান।রাজবাড়ী ১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী তাকে নিয়ে মিথ্যাচার করেছেন বলে অভিযোগ করেন।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে রাজবাড়ী-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য নাসিরুল হক সাবু, জেলা বিএনপির সাবেক সদস্য সচিব এ বি এম মঞ্জুরুল আলম, সাবেক আহবায়ক নঈম আনসারী, কালুখালী উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এ্যাড আবদুর রাজ্জাক, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক গাজী আহসান হাবীব প্রমূখ নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

আপনি যে খবরগুলো মিস করেছেন