মোঃ মুক্তাদির হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ

গাজীপুরের কালীগঞ্জ পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড মুনসুরপুর, নামা পাড়ায় ও দড়িসোম এলাকায় অল্প বৃষ্টিতেই হাঁটু পানি জমে যায়। কোন কোন বাড়িতে ঘরের ভিতরে পানি ডুকে যায়, ফলে বিভিন্ন বাড়ীর ঘরের ভেতরে পানি জমা থাকায় বিভিন্ন পানিবাহিত ( ডাইরিয়া, ম্যালেরিয়া, আমশয়, চুলকানী, খোঁস -পাচরা) রোগে আক্রান্ত হচ্ছে অল্প বয়সী শিশুসহ বয়স্করা।
ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় পানি জমাট দীর্ঘ স্থায়ী হয়। যার কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে স্থানীয়রা। তবে জেলা পরিষদের অর্থায়নে ড্রেনের ব্যবস্থা করা হলেও ঠিকাদারের উদাসীনতায় ড্রেনের পাইপ পানির উপরে থাকায় পানি সরতে সমস্যা হচ্ছে।
কালীগঞ্জ পৌর মেয়র এস এম রবীন হোসেন বলেন, সমস্যাটি দীর্ঘদিনের। এ কাজের জন্য জেলা পরিষদ থেকে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। খুব শীঘ্রই ড্রেনেজ ব্যবস্থা সম্পন্ন করে জমে থাকা পানি নিষ্কাশন করা হবে।কালীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী ও দড়িসোম এলাকার বাসিন্দা মইনুল টেড্রাডার্স এর মালিক মো. মাইনুল হাসান বলেন, ইতিপূর্বে যে ড্রেনেজ ব্যবস্থা করা হয়েছে তা শুধু অর্থই অপচয় করা হয়েছে। জনসাধারণের কোন উপকারে আসে নাই। যে টাকাটা অপচয় হয়েছে সেটা তো আমাদের জনগণের টাকা। তা সঠিক ব্যবহার না করে কেন অপচয় হয়েছে। আর আমরা দীর্ঘ দিন যাবৎ এই পানিবন্দী জীবন যাপন করছি। এর দায় কে নেবে।সাধারণ জনগণের ভোগান্তি শেষ নেই, নির্বাচন আসলে বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিরা মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে যায় আমাদের ভোট দিন, আমরা পাশ করলে আপনাদের এই কষ্ট লাগব করবো, কিন্তু নির্বাচন চলেগেলে যেই লাউ সে কদু, আমারা পানি বন্দী থেকে মুক্ত হতে পারলামা না। আমরা এলকাবাসী গাজীপুর ৫ আসনের সাংসদ কালীগঞ্জের মাটি ও মানুষের প্রিয় নেতা জননেতা আখতারুজ্জামান এমপির সুদৃষ্টি আকর্ষণ করছি, আমরা আমাদের এলাকার এই দূর্ভোগ থেকে আমাদের কে আপনি মুক্ত করুন, স্হায়ী একটি ড্রেনেজ ব্যবস্থার বন্দবস্ত করে দিন।

আপনি যে খবরগুলো মিস করেছেন